top of page
Search

অপরাজিতা ফুলের চা খেয়েছেন কখনো? চলুন জেনে নিই এর উপকারিতা সম্পর্কে...


দুধ ফুটিয়ে ঘন করে আদা এলাচ ইত্যাদি মশলায় বানানো চা'য়ে অভ্যস্ত বলেই আমরা অন্যান্য অনেক চা সম্পর্কে খুব কম জানি। জবা ফুলের চা, পুদিনাপাতার চা, তুলসিপাতার চা ইত্যাদি আমাদের কাছে অনেকটাই অচেনা। তেমনই অপরিচিত আরেকটি চা হলো অপরাজিতা ফুলের চা। অন্যান্য যে কোনো চায়ের তুলনায় অপরাজিতা চায়ের ভেষজ গুণ অনেক বেশি।


১.এই চা রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করার পাশাপাশি ঠান্ডাজনিত সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।


২.সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে সকালের শুরুটা এককাপ অপরাজিতার চা দিয়ে করা যেতেই পারে।


৩.অ্যান্টি অক্সিডেন্টের গুণে ভরপুর অপরাজিতার চা শরীরে বয়সের ছাপ পড়তে দেয় না।


৪.নিয়মিত এই চা পান করলে শরীরের ক্ষতিকর সংক্রামণ থেকে বিরত রাখা যায়।

৫.ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য এ পানীয়টি বিশেষ উপকারী।


৬.এটি ত্বক ও চুলের যত্নেও ব্যবহার করা যেতে পারে।


৭.হতাশা কাটানোর এক দারুণ ওষুধ হতে পারে এই চা।


৮.ক্যান্সারকে দূরে রাখতে সাহায্য করতে পারে অপরাজিতার চা। এর মধ্যে থাকা একাধিক উপকারী উপাদান ক্যান্সারের ঝুঁকিকে কমাতে সাহায্য করবে।


১০. ডিমেনশিয়া রোগীদের জন্য ভীষন উপকারী।


১১.অপরাজিতার চা বমির ভাব দূর করে। তবে বেশি খেলে ডায়রিয়া হওয়ার সম্ভবনা থাকে।

কিভাবে বানাবেন:


অপরাজিতা ফুল শুকিয়ে একটা বয়ামে রাখতে হবে।


চা তৈরির সময় দেড় কাপ জলে ৫-৬ টি শুকনো অপরাজিতা দিয়ে ফল ফোটাতে হবে।


ধীরে ধীরে ফুটন্ত জল নীল হয়ে এলে কাপে ঢেলে চিনি মেশাতে হবে।


স্বাদ বাড়াতে লেবুর রস দেওয়া যায়, তবে এতে নীল রঙ পালটে বেগুনী হয়ে যাবে।


বাড়তি স্বাদ ও গন্ধের জন্য এলাচ, মধু, পুদিনাপাতা যোগ করতে পারেন।


bottom of page