top of page
Search

আমিষ নিরামিষ পাঁচরকম ভর্তা... শুঁটকি, কাঁঠালবীজ, কুমড়ো বীজ ভর্তার রেসিপি...

গরমভাতে কাঁচালঙ্কাসহ বিভিন্ন ধরনের ভর্তা হলেই খাওয়াটা জাস্ট জমে যায়। আমিষ নিরামিষ জম্পেশ সব ভর্তার রেসিপি দিলেন দুষ্টু বিশ্বাস।


চালকুমড়ো পাতা বাটা


কী কী লাগবে

চালকুমড়ো পাতা ১৫-১৬ টা

রসুন --৮/১০কোয়া

কাঁচা লঙ্কা -- ৪/৫টা

শুকনো লঙ্কা -- ১টা

কালোজিরে-- হাফ চা চামচ

সরষের তেল -- ২চা চামচ

নুন-- স্বাদমতো


কিভাবে বানাবেন

চালকুমড়ো পাতা শির ফেলে ভালো করে ধুয়ে কুচিয়ে নুন মাখিয়ে নিন। কড়াইতে সরষের তেল গরম করে তাতে শুকনো লঙ্কা কালোজিরে হালকা ভেজে কুচানো পাতা, কাঁচালঙ্কা দিন, ভালো করে নেড়ে পরিমানমতো নুন দিয়ে নাড়তে থাকুন, অনেকটা জল বেরিয়ে আসবে, এই জল শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত নেড়ে রসুন কোয়া দিয়ে একদম ভাজা ভাজা করে নিন।এবার গরম থাকতে থাকতেই শিলপাটায় বেটে নিন। যারা মিক্সিতে করতে চান অবশ্যই ঠান্ডা করে মিক্সিতে বেটে নেবেন। এখন গরম ভাত দিয়ে শুধু খাবার অপেক্ষা।

কাঁঠাল বীজ ভর্তা


কী কী লাগবে


কাঁঠাল বীজ ১৫ টা

রসুন --৬/৭কোয়া

পেঁয়াজ -- ছোটো ১টা

কাঁচা লঙ্কা -- ৪/৫টা

কালোজিরে-- হাফ চা চামচ

নারকেল কোরা -- ২চা চামচ

সরষের তেল -- ১টেবিলচামচ

নুন-- স্বাদমতো


কিভাবে বানাবেন

কাঁঠাল বীজ কুকারে সেদ্ধ করে নিন। এবার ঠান্ডা করে খোসা ছাড়িয়ে নিন। পেঁয়াজ, রসুন, কাঁচালঙ্কা (কেউ শুকনো লঙ্কা খেতে চাইলে দিতে পারেন, ঝালের পরিমাণ নিজের পছন্দ মতো ব্যবহার করবেন) , নারকেল কোরা, স্বাদমতো নুন দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন।এবার কড়াইতে সরষের তেল গরম করে তাতে কালোজিরে ফোঁড়ন দিতে সমস্ত পেষ্ট টা দিয়ে ভালো ভাবে নেড়ে একদম শুকনো করে নামিয়ে গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।


পোড়া চিংড়ি শুটকি ভর্তা

কী কী লাগবে

চিংড়ি শুটকি -- ১মুঠো

রসুন --৭/৮কোয়া

পেঁয়াজ -- ছোটো ১টা

কাঁচা লঙ্কা -- ৪/৫টা

শুকনো লঙ্কা -- ৪/৫টা

নুন--- স্বাদমতো

সরষের তেল -- ১টেবিলচামচ

‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌

কিভাবে বানাবেন

চিংড়ি শুটকি পুড়িয়ে নিতে হবে। যদি আগুনে পোড়াতে সমস্যা হয় তো শুকনো কড়াইতে তেল ছাড়া নেড়ে পোড়া পোড়া করে নিতে হবে। এবার গরম জল দিয়ে ভিজিয়ে রাখুন। কড়াইতে আবার শুকনো শুকনো করে পেঁয়াজ,রসুন, শুকনো লঙ্কা, কাঁচালঙ্কা ভাজা ভাজা করে নিন সম্পূর্ণ তেল ছাড়া। কিছুক্ষণ পর স্বাদমতো নুন দিয়ে শিলপাটায় বেটে নিন মসৃণ করে। এবার সরষের তেল গরম করে সবটা দিয়ে নেড়ে গরম ভাত দিয়ে পরিবেশন করুন। একথালা ভাত নিমেষে উধাও হবেই হবে। লইট্যা শুটকি, চ্যাপা শুটকি দিয়ে ও দূর্দান্ত লাগে।


কাঁচা আমের ভর্তা


কী কী লাগবে


কাঁচা আম -- ২টো

কাঁচালঙ্কা-- ৩/৪টা

কালো সরষে -- ১ চা চামচ

সরষের তেল -- ১চা চামচ

রসুন -- (২/৩কোয়া)(ইচ্ছে হলে নাও দিতে পারেন)

কিভাবে বানাবেন


কাঁচা আম কুড়িয়ে নিন, এবার শিলপাটায় সরষে,কাঁচালঙ্কা নুন দিয়ে বেটে নিন,এরপর কুড়িয়ে রাখা আম আর রসুন একসাথে দিয়ে মসৃণ করে বেটে সরষের তেল গরম করে তাতে টেলে নিয়ে আঁটো করে নিন। গরম ভাতে আনন্দ করে খান।


কুমড়ো বীজ ভর্তা


কী কী লাগবে

কুমড়োর দানা -- ১মুঠো,

রসুন --১০/১২ কোয়া,

শুকনো লঙ্কা --২টো,

কাঁচালঙ্কা-- ৩/৪টে,

কালোজিরে--১চা চামচ,

সরষের তেল -- ১টেবিলচামচ


কিভাবে বানাবেন


কুমড়োর বীজ কালোজিরে, শুকনো লঙ্কা, কাঁচালঙ্কা, রসুন শুকনো খোলায় নেড়ে ঠনঠনে করে ভেজে নিতে হবে। দানার খোসা ছাড়িয়ে নিতে চাইলে গরম জলে ভিজিয়ে রেখে ছাড়িয়ে নিতে হবে। এবার সবটা শীলনোড়ায় বেটে নিন স্বাদমতো নুন দিয়ে।এই ভাবে গরম ভাতে খেতে পারেন আর চাইলে সরষের তেল গরম করে তাতে সম্পূর্ণ বাটা ঢেলে শুকনো শুকনো করে নামিয়ে নিন, এবার গরম ভাত দিয়ে আয়েস করে খান।

댓글


bottom of page