Search

" অতি ভৈরব হরষে ।। বিধ্বংসের বছরপূর্তি...

..." অতি ভৈরব হরষে ।। " : আমফান বিধ্বস্ত কলকাতাঃ ২০ মে ২০২০ ।। লিখছেন অর্ক চৌধুরী, চিত্র- সন্দীপন চৌধুরী।


সুকুমার রায় যদি বেঁচে থাকতেন এবং তিনি ২৫ মে ২০০৯ এর “ আয়লা “ দেখে হতবাক হতেন ,তাহলে ২০ মে ২০২০ তে ঘটে যাওয়া আমফান দেখে তাঁর পাগলা দাশু-কে সঙ্গে নিয়ে ছুটে যেতেন ধর্মতলার দিকে । এবং পাগলা দাশুর হৃদপিন্ড কেঁপে উঠত । পাগলা দাশু অনেক কষ্টে বিড় বিড় করে স্বগতোক্তি করে বলতঃ “আবার সে এসেছে ফিরিয়া … !!”

আমরা কয়েক দশক আগেও ঝড় দেখেছি , এবং ফি-বছর প্রবল গ্রীষ্মে দেখে থাকি , যে ঝড় এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগগুলি তার পোষাকি নাম হল …” কালবৈশাখী ।“ বাস্তব হল , প্রতি বছর গ্রীষ্মেই আমরা প্রবল গরমে অতিষ্ঠ হয়ে কালবৈশাখীর আগমনকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত থাকি । EL—Nino জনিত কারণে ২০০৯ –তে এপ্রিল ও মে মাসে কালবৈশাখী প্রায় হয়নি বললেই চলে। সে বছর আমি গাঙ্গেয় অববাহিকায় জেলা শহরে ভরা গ্রীষ্মে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা উঠতে দেখেছিলাম ৪৪ ডিগ্রী সেন্টিগ্রেড । এবং নদীয়া জেলার রাণাঘাটে ল্যু—বইতে দেখেছিলাম । ফলে আনুষ্ঠানিকভাবে যেদিন “ আয়লার “ আগমনের খবর ঘোষনা হয়েছিল সেদিন আপামর জনসাধারণ সেই ঝড়কে স্বাগত জানিয়েছিল । এবং নির্ধারিত দিনের নির্দিষ্ট সময়ে সেই ঝড়ের আগমণ যখন ঘটেছিল তখন সেই জনসাধারণ ত্রাহি ত্রাহি রব ছেড়েছিল । ২৫ মে ২০২০ –র সেই আয়লার ভয়ঙ্কর তান্ডব আমি দেখেছিলাম রেলগাড়িতে বসে । আমরা সভ্যতার অহঙ্কার করে থাকি প্রতিনিয়ত । কিন্তু সভ্যতা যে প্রকৃতির কাছে কতটা অসহায় তা সেদিন অনুভব করেছিলাম আয়লার সেই তান্ডব দেখে।ঝড় প্রকৃতির অতি সাধারণ ঘটনা । ন্যাচারাল ফেনমেনান । ঠিক এই মূহুর্তে দেশের আমজনতা বিগত দু-বছর যাবৎ অসহায় কোভিড-১৯ ভাইরাস ঝড় থেকে যখন মুক্তি চাইছে ঠিক তখনই আবার এক ঝড়ের পূর্বাভাষ দিয়ে নোটিফিকেশন করেছে আবহাওয়া দপ্তর । এবারে অর্থাৎ ২০২১ –এর সেই সাইক্লোনের নামকরণ হয়েছে “ ইয়স বা যস ।“ তিনি আসছেন ….. এবং সাইক্লোন যশের ল্যান্ডফল ঘটতে পারে আগামী ২৪ / ২৫ মে ২০২১ । আমরা জানিনা তার সেই রুদ্ররূপ কেমন হবে । গত বছর আমফান এর ভয়াবহ রূপ আমরা দেখছিলাম । আমরা অর্থাৎ আমজনতা আবার আতঙ্কিত । ঝড়ের কথায় পরে আসব । তার আগে ২০ মে ২০২০ সেই আমফান এর আঘাতে কলকাতার বিধ্বস্ত অবয়বের ছবিগুলো দেখে নিইঃ …….


১) বিধ্বস্ত কলকাতা । বন্ধ বিদ্যাসাগর সেতুর পথ । স্থান –প্রিনসেপ ঘাট ।



২) কাউনসিল হাউস স্ট্রীটের ট্রেজারি বিল্ডিং । নির্জন পথে একাকী / পথভ্রান্ত ।।



৩) অবরুদ্ধ ময়দান ।



৪) অতি নির্জন অফিস পাড়া ।



৫) ইতিহাসের মহাকরণ অবরুদ্ধ ।



৬) স্ট্যান্ড রোড । স্টেট ব্যাঙ্ক সদর দপ্তর ।



৭) বিধ্বস্ত স্টক এক্সচেঞ্জ যাওয়ার রাস্তা ।



৮) জলাশয় হয়েছে ইলিয়ট পার্কের মহরকুঞ্জ ।



৯) লেকটাউন । বাঙ্গুর । ভি. আই পি . রোড ।



১০) ভি.আই. পি . রোড । বাঙ্গুর ।