top of page
Search

পার্টি অল নাইট... ৩৩ টি ক্রিসমাস পার্টি রেসিপি..

বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণের মতোই যিশুপুজোও এখন ধর্ম-বর্ন নির্বিশেষে প্রায় সব ঘরেঘরেই সারম্বরে পালিত হয়। ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে কলকাতার রাজপথ সেজে ওঠে আলোর রোশনাই তে। দূর্গাপুজো কিম্বা দীপাবলির থেকে সে আলোর জৌলুস কোনো অংশে কম নয়। লাল সাদা সান্তা টুপি মাথায়, ঘরের এক কোনে সাজানো ক্রিসমাস ট্রিতে আলো জ্বেলে, কমলার সিরাপে ডোবানো গরম গরম প্লাম কেক খেতে যেন তৈরি সবাই। শুধু কি তাই! বছরের শেষ সপ্তাহে, শীতের সন্ধ্যাগুলোকে জমিয়ে দিতে, টুকটাক ঘরোয়া পার্টির আয়োজনে কেক ছাড়াও আরো কী কী বানাতে পারেন তার'ই হদিশ রইলো আজ।


মীরাতুন নাহার

কলকল


কী কী লাগবে

সুজি

ময়দা

ঘি

নারকেল দুধ

চিনি গুঁড়ো

নুন

সাদা তেল

কীভাবে বানাবেন

একটা পাত্রের মধ্যে এক কাপ সুজি ও এক কাপ ঘি দিয়ে মেখে নিতে হবে। এবার এর মধ্যে দু কাপ ময়দা, এক কাপের একটু কম চিনি (গুঁড়ো), সামান্য নুন দিতে হবে। এবার অল্প অল্প করে নারকেল দুধ দিয়ে মেখে একটা ডো তৈরি করে নিতে হবে। এই ডো থেকে ছোট ছোট বল তৈরি করে নিতে হবে। একটা কাঁটা চামচের উল্টো দিকে একটা করে বল বসিয়ে একটু চেপে এক সাইড দিয়ে মুড়ে নিতে হবে। এই ভাবে সব গুলো কলকল রেডি করে সাদা তেলে ডিপ ফ্রাই করে নিতে হবে।

ভেজে তুলে নিয়ে চিনির গুঁড়ো মিশিয়ে দিতে হবে।

অনামিকা চক্রবর্তী

ফ্রুট কাস্টার্ড উইথ রেড ভেলভেট টাচ


কী কী লাগবে

আধা লিটার দুধ

চিনি আধা কাপ

কাস্টার্ড পাউডার

রেড ভেলভেট কেক


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে আধা লিটার দুধে চিনি দিয়ে ফুটিয়ে নিন। অন্যদিকে আধা কাপ ঠান্ডা জলে কাস্টার্ড পাউডার গুলে নিন। এরপর মিশিয়ে রাখা কাস্টার্ড পাউডার ফুটিয়ে রাখা দুধে দিয়ে একটু নেড়ে নেড়ে ঘন করে নিন। গ্যাস অফ করে ঠান্ডা হতে দিন। ঠান্ডা হওয়ার পর আপেল, কলা, পাকা পেঁপে টুকরো টুকরো করে কেটে দিয়ে, তার উপর রেড ভেলভেট কেক টুকরো টুকরো করে দিয়ে, ফ্রিজে ঠান্ডা হওয়ার জন্য রেখে দিন। একঘন্টা পর ঠান্ডা ঠান্ডা ফ্রুট কাস্টার্ড পরিবেশন করুন।



শুক্লা শীল

গন্ধরাজ চিকেন সসেজ

কী কী লাগবে

৬০০ গ্ৰাম বোনলেস চিকেন

৬ টেবিল চামচ ময়দা

৬ টেবিল চামচ কর্ণ ফ্লাওয়ার

১ টি ডিম

২ টি গন্ধরাজ লেবু

১৫ টি গন্ধরাজ লেবুর পাতা

১ টি কাশ্মীরি লঙ্কা

৬ টি শুকনো লঙ্কা

১/২ কাপ নারকেল কোরানো

১/২ কাপ গ্ৰেট করা গাজর

২ চামচ রসুন বাটা

১/২ চামচ আদা বাটা

৬ টেবিল চামচ পোস্ত বাটা

পরিমাণ মতো নুন

কয়েক ফোঁটা সাদা তেল

৩০ টি গোলমরিচ

৪ টি কাঁচা লঙ্কা

অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল

বরফের টুকরো


কীভাবে বানাবেন

কাশ্মীরি লঙ্কা ও শুকনো লঙ্কা পাতলা পাতলা টুকরো করে, চিলি ফ্লেক্স বানিয়ে নিতে হবে।চাইলে কেনা চিলি ফ্লেক্স ও ব্যাবহার করা যেতে পারে।

গোলমরিচ ও পোস্ত অল্প জলে ভিজিয়ে রাখতে হবে। বোনলেস চিকেন ছোট টুকরো করে কেটে নিতে হবে।একটি মিক্সার গ্ৰাইন্ডারের বোলে অল্প চিকেনের টুকরো নিয়ে, এর মধ্যে একটি ডিম ফাটিয়ে দিয়ে,৪ টি কাঁচা লঙ্কা,৫ টি গন্ধরাজ লেবুর পাতা,আদা,রসুন বাটা, ভেজানো গোলমরিচ ও পোস্ত, কোরানো নারকেল ও গ্ৰেট করা গাজর দিয়ে, পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে। এবার একটি বোলের মধ্যে ঢেলে, বাকি চিকেন পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে। সমস্ত চিকেন পেস্ট বানানো হয়ে গেলে, একটি বড়ো বোলের মধ্যে ঢেলে, পরিমাণ মতো নুন, ১ টি গন্ধরাজ লেবুর রস, চিলি ফ্লেক্স ও অল্প অল্প করে ময়দা ও কর্ণ ফ্লাওয়ার মিশিয়ে, টাইট করে মেখে নিতে হবে। এবার দুহাতে কয়েক ফোঁটা তেল মাখিয়ে নিয়ে, এগুলো নিজের পছন্দ মতো সেপের গড়ে নিতে হবে। এবার বড়ো চৌকো সেপের এলুমিনিয়াম ফয়েল কেটে এরমধ্যে একটি সসেজ এর মোণ্ড রেখে, এয়ার টাইট করে লজেন্স এর মতো করে মুড়ে দু দিক খুব ভালো করে পেচিয়ে দিতে হবে। এবার একটি গ্যাস ওভেন জ্বালিয়ে, একটি ঢাকনা দেওয়া পাত্রে অর্ধেক অংশ জল ভরে, ঢাকা বন্ধ করে জল গরম হতে দিতে হবে।

জল ফুটতে শুরু করলে এর মধ্যে, লজেন্স এর মতো মোরানো চিকেন গুলো দিয়ে ঢাকা দিয়ে, ১৫ থেকে ২০ মিনিট খুব ভালো করে ফুটিয়ে নিতে হবে।এবার গ্যাস অফ্ করে দিতে হবে। একটি পাত্রে বরফের টুকরো নিয়ে, এরমধ্যে লজেন্স এর মোড়ানো গুলো দিয়ে খুব ভালো করে ঠাণ্ডা করে নিতে হবে। সম্পূর্ণ ভাবে ঠাণ্ডা হলে এগুলো এলুমিনিয়াম ফয়েল থেকে খুলে পছন্দ মতো সেপের কেটে পরিবেশন করুন। এই সসেজ গুলি এয়ার টাইট কন্টেইনারে ডিপ ফ্রিজে সংরক্ষণ করা যায়। স্যান্ডউইচ, বার্গার ইত্যাদির মধ্যে দিয়ে পরিবেশন করতে পারেন। আবার সামান্য বাটারে বা সেজ ওয়ান সসে টস করে হয়বা গ্রিল করে পরিবেশন করতে পারেন। আমি এই সসেজ গুলি সামান্য গ্ৰিল করে আপনাদের সামনে পরিবেশন করেছি। সাজানোর জন্য গন্ধরাজ লেবু, লেবুর পাতা, গ্ৰিলড টমেটো, ক্যাপসিকাম, পেঁয়াজ, গাজর ও গ্ৰীন চাটনি ব্যবহার করেছি। অত্যন্ত সুস্বাদু ও স্বাস্থ্যকর রেসিপি টি অবশ্যই বানানোর অনুরোধ রইল।



চাইনিজ পাইনঅ্যাপেল চিকেন


কী কী লাগবে

২০০ গ্ৰাম বোনলেস চিকেন

১ কাপ আনারস টুকরো

৪ টি পিঁয়াজ

১/২ গাজর

১/২ ক্যাপসিকাম

১ টেবিল চামচ সাদা তিল

১০ টি কাজুবাদাম

১/৪ কাপ ধনেপাতা

১ ইঞ্চি আদা

৮ কোয়া রসুন

১/২ টেবিল চামচ কর্ণ ফ্লাওয়ার

২ চামচ সয়াসস

পরিমাণ মতো সাদা তেল

পরিমাণ মতো নুন



কীভাবে বানাবেন

সবার প্রথমে বোনলেস চিকেনে ১/৪ চামচ আদা রসুন বাটা, ১/২ চামচ সয়াসস ও পরিমাণ মতো নুন দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে, অন্তত ১৫ মিনিট ম্যারিনেট করে রাখতে হবে। সমস্ত সবজি লম্বাটে করে কেটে নিতে হবে। এবার একটি কড়াই গরম করে তাতে পরিমাণ মতো সাদা তেল গরম করে, এরমধ্যে ম্যারিনেট করা চিকেন দিয়ে, ৫ মিনিট নেড়েচেড়ে এর মধ্যে পিঁয়াজ কুচি, আদা কুচি ও রসুন কুচি দিয়ে ২ মিনিট নেড়েচেড়ে নিতে হবে। এবার এরমধ্যে গাজর কুচি দিয়ে একটু নেড়েচেড়ে ক্যাপসিকাম কুচি দিয়ে আবার নাড়াচাড়া করে নিতে হবে। এবার এরমধ্যে সামান্য নুন দিয়ে নেড়েচেড়ে নিতে হবে,সয়াসসে নুন থাকে তাই নুন খুব অল্পই লাগবে।একটু নেড়েচেড়ে দেখে নিতে হবে চিকেন সিদ্ধ হয়েছে কিনা। খুব ছোট টুকরো করে, ম্যরিনেট করে রাখার জন্য একটু ভাজতে ভাজতে চিকেন সিদ্ধ হয়ে যাবে। চিকেন সিদ্ধ হলে এরমধ্যে বাকি সয়াসস ঢেলে দিয়ে নেড়েচেড়ে নিতে হবে। একটি বাটিতে ১/৪ কাপ জলের মধ্যে কর্ণ ফ্লাওয়ার গুলে নিতে হবে। এবার চিকেনের মধ্যে অল্প অল্প করে কর্ণ ফ্লাওয়ার গোলা ঢালতে হবে আর ক্রমাগত নাড়াচাড়া করে মিশিয়ে নিতে হবে। গামাখা পর্যায়ে চলে এলে এরমধ্যে আনারসের টুকরো দিয়ে, হালকা হাতে নেড়েচেড়ে নিতে হবে। এবার নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন সন্ধ্যার আড্ডায়। এক্ষেত্রে আনরস একটু কাঁচা পাকা হলে এই রেসিপির স্বাদ সবচেয়ে বেশি হয়, একটু টক টক, মিষ্টি মিষ্টি চাইনিজ পাইনঅ্যাপেল চিকেন।

চৈতী দাস

পেস্তাবাদাম রোল


কী কী লাগবে

১ কাপ ছানা, ১/২ কাপ নারকেল, ১/২ কনডেন্সড মিল্ক, ১/৪ কাপ গুঁড়ো দুধ, ১/৪ কাপ দুধ, বাদাম কুচি, এলাচ গুঁড়ো, সামান্য পরিমাণ চিনি, ১ চামচ ঘি


‌কীভাবে বানাবেন

প্রথমে একটি পাত্রে ছানা টাকে ভালো করে ম্যাশ করে নিতে হবে। তারপর একটি প্যানে একে একে ছানা, নারকেল, কনডেন্সড মিল্ক, গুড়ো দুধ, চিনি, ও ঘি এলাচ গুঁড়ো দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে হাতের সাহায্য। তারপর গ্যাসে বসিয়ে দিতে হবে এবং সোফ্লেম দিয়ে রাখতে হবে। মিশ্রণ টাকে ভালো করে নাড়াতে হবে যাতে তলায় না লেগে যায়। ধীরে ধীরে মিশ্রণ টা ভালো মতো পাক/দলা হয়ে এলে গ্যাস বন্ধ করে নামিয়ে নিতে হবে। এদিকে পেস্তাবাদামকে ভালো করে কুচি করে নিতে হবে। মিশ্রণ টা সামান্য ঠান্ডা হলে একটু হাতে নিয়ে যেকোন আকারে গড়ে নিতে হবে তারপর পেস্তা বাদাম কুচিতে এপিঠ ওপিঠ গড়িয়ে তুলে নিতে হবে। ব্যাস তৈরি পেস্তাবাদাম রোল।



রত্না বল্লরী গোস্বামী

চিজি কর্ণ টিক্কা


কী কী লাগবে

১ বাটি কর্ণ/ ভুট্টা সেদ্ধ করা

১ টা বড় আলু সেদ্ধ

১/২ পেঁয়াজ কুচি

২টো লঙ্কা কুচি

১ মুঠো ধনে পাতা কুচি

১ টা চিজ কিউব

১/২ চামচ চাট মশলা

১/২ চামচ লঙ্কা গুঁড়ো

১ চামচ কর্নফ্লাওয়ার

২ চামচ চালের গুঁড়া

পরিমাণ মত নুন ও মিষ্টি

১/২ চামচ গোলমরিচ গুঁড়া

দু কোয়া রসুন কুচি

২ চামচ গাজর কুচি


কীভাবে বানাবেন

শিল পাটায় সেদ্ধ ভুট্টা দানার অর্ধেক খসখসে করে একটু বেটে নেব। সেদ্ধ আলু টাও চটকে নেব।তারপর এর মধ্যে পেঁয়াজ কুচি, লঙ্কা কুচি, গাজর কুচি ধনেপাতা কুচি , নুন ও মিষ্টি, গোলমরিচ গুঁড়া, চাট মশলা, লঙ্কা গুঁড়ো, চালের গুঁড়া, কর্নফ্লাওয়ার ও সামান্য তেল ও আস্ত ভুট্টা দানা এক সাথে মেখে নিতে হবে।

৫ মিনিট ঢাকা দিয়ে রেস্টে রাখতে হবে। তারপর ছোট ছোট রুটির লেচি মত করে হাত দিয়ে একটু চ্যাপ্টা করে টিকিয়া আকারে গড়তে হবে এবং একটু ব্রেড ক্রাম্ব মাখাতে হবে। এবার এক ঘন্টা ফ্রিজে রেখে স্যালো ফ্রাই করতে হবে এবং পুদিনা পাতার চাটনি সহ পরিবেশন করতে হবে।


ম্যাগি চাট


কী কী লাগবে

১ টা ছোট ম্যাগির প্যাকেট

১/২আলু সেদ্ধ

১/২ টমেটো কুচি

১/২ পেঁয়াজ কুচি

১/২ শশা কুচি

১ মুঠো খোসা ছাড়ানো বাদাম ভাজা

১ মুঠো ভুট্টা সেদ্ধ

১ চামচ ধনে পাতা কুচি

১ টা কাঁচা লঙ্কা কুচি

১/৪ চামচ চাট মশলা

১/৪ চামচ ভাজা মশলা

১/৪ চামচ আমচুর পাউডার

পরিমাণ মত নুন

১/২ পাতিলেবুর রস

২ চামচ টমেটো সস


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে ম্যাগি টা নিয়ে শুকনো খোলায় লো ফ্লেমে করকরে ভেজে নিতে হবে। রং যেন না বদলায়।

এবার শশা, আলু,টমেটো, পেঁয়াজ, কাঁচা লঙ্কা, ধনে পাতা সব কিছু কুচি করে কেটে নিতে হবে। এবার একটা পাত্রে সব কিছু মিশিয়ে তার মধ্যে বাদাম ভাজা , ভুট্টা,চাট মশলা,ভাজা মশলা, নুন, আমচুর পাউডার ও ভাজা ম্যাগি ও পাতি লেবুর রস সব একসাথে মিশিয়ে উপর দিয়ে টমেটো সস দিয়ে পরিবেশন করুন।

স্বর্নাভ হালদার

কমলাভোগের পান্নাকোটা


কী কী লাগবে

২ কাপ সুজি

২ লিটার দুধ থেকে তৈরি করা ছানা

১ কাপ ময়দা

২ চা চামচ কমলালেবুর রস

৬ ফোঁটা কমলালেবুর এসেন্স

দেড় কাপ চিনির গুঁড়ো

পরিমাণ মত কমলা ফুড কালার

কমলালেবুর রস ১ কাপ

১ চা চামচ কমলালেবুর খোসা ( কুড়িয়ে নেওয়া)

১ বা ২ চিমটি জাফরান

আধাকাপ মাওয়া

আধা চা চামচ এলাচ গুঁড়া

২৫০মিলি কন্ডেন্সড মিল্ক

২ চা চামচ জিলেটিন বা আগার আগা পাউডার

পরিমাণ মতো উষ্ণ জল

কেটে নেওয়া স্ট্রবেরি ৩ টুকরো



কীভাবে বানাবেন

প্রথমেই ১ লিটার দুধ জ্বাল দিয়ে এতে লেবুর রস দিয়ে ছানা কেটে নিতে হবে।একটি মসলিন কাপড়ে ছানা মুড়ে বেশ কয়েক ঘন্টা ঝুলিয়ে রাখতে হবে যাতে সম্পূর্ণরূপে জল ঝরে যায়I এরপর শুকনো ছানা আঙুল দিয়ে ভালো করে পিষে গুঁড়ো গুঁড়ো করে ময়দা,সুজি,১ চিমটি জাফরান, দু'ফোঁটা ফুড কালার এবং এক ফোঁটা কমলালেবুর এসেন্স যোগ করার পর মিশ্রণটি মসৃণ না হওয়া পর্যন্ত মাখতে হবেI ভালোভাবে মেখে নিয়ে ছোট ছোট বলের আকারে লেচি করে নিতে হবেI একটি প্যানে সমপরিমাণ জল ও ১ কাপ চিনি ফুটতে দিতে হবে।ফুটে ঘন হয়ে আসলে নামিয়ে ঠাণ্ডা করতে হবে। একটি তলাভারী পাত্রে ১ কাপ কমলার রস সহ ৪ কাপ জল এবং কমলালেবুর জেস্ট যোগ করার পর ফুটতে দিতে হবেI মিশ্রণটি ফুটতে শুরু করলে এতে কমলাভোগের বলগুলি ছেড়ে দিতে হবে।কিছুক্ষণ পর ফুটে উঠলে নামিয়ে চিনির রসে দিয়ে আধাঘন্টা ভিজিয়ে রাখতে হবেI এখন,একটি মোটাতলা বিশিষ্ট প্যানে আরো এক চিমটি জাফরান যোগ করার পর বাকি এক লিটার দুধকে ফুটতে দিতে হবে যতক্ষণ না দুধ ঘন হয়ে তিন-চতুর্থাংশ হয়I দুধ ঘন হয়ে এলে এতে এলাচ গুঁড়ো,বাকি আধা কাপ গুঁড়ো করে নেওয়া চিনি যোগ করে মাঝারি আঁচে নাড়তে হবেI মিনিট পাঁচেক পর এর মধ্যেই কমলাভোগ বল এবং কনডেন্সড মিল্ক যোগ করে একদম কম আঁচে আরও ৫ মিনিট ফুটিয়ে নিয়ে বাকি থেকে যাওয়া কমলালেবুরের এসেন্স যোগ করে আঁচ বন্ধ করে দিতে হবেI এবার ২ টেবিল চামচ গরম জলে ২ চা চামচ আগর আগর পাউডার ভালভাবে গুলে নিতে হবেI এবার কমলাভোগের পায়েশকে হালকা গরম আগর আগর দ্রবণে মিশিয়ে উপযুক্ত পাত্রে ফেলে ৪-৫ ঘন্টার জন্য ফ্রিজে পান্নাকোটা জমতে দিতে হবেI এরপর পুডিং মোল্ড থেকে বার করে প্লেটে সাবধানে রেখে স্ট্রবেরি কুচি দিয়ে সাজিয়ে নিলেই পরিবেশন করার জন্য একদম তৈরি I

বেকড অ্যাপেল উইথ চকো-নলেনগুড় সুফলে

বেকড আপেল


কী কী লাগবে

৪টি বড় আপেল

এক-চতুর্থাংশ কাপ ব্রাউন সুগার

১ চা চামচ দারুচিনি

এক-চতুর্থাংশ কাপ কাটা কিশমিশ

১ টেবিল চামচ গলানো মাখন

তিন-চতুর্থাংশ কাপ ফুটন্ত জল

কীভাবে বানাবেন

ওভেন 375°F (190°C) তাপমাত্রায় প্রিহিট করুনI

স্টাফিংয়ের জন্য একটি ধারালো ছুরি ব্যবহার করে,আপেলের নীচের দিক থেকে আধা ইঞ্চি অক্ষত রেখে চামচের সাহায্যে মধ্যিখানের অংশটা ভালো করে কুড়ে নিনI

একটি ছোট বাটিতে ব্রাউন সুগার, দারুচিনি,কাটা কিশমিশ ভালো করে মিশিয়ে নিনI

আপেলগুলিকে একটি বেকিং ডিশে রাখুন এবং প্রতি আপেলের মধ্যিখানের কুড়ে নেওয়া অংশকে উপরের মিশ্রণটি দিয়ে ভর্তি করুন এবং উপরে পর্যাপ্ত পরিমাণ মাখন দিয়ে ঠেসে দিনI

এবার আপেল গুলিকে 375°F (190°C) তাপমাত্রায় আধা ঘন্টার জন্য বেক করুনI

এরপর বেক হয়ে যাওয়া আপেলগুলি ওভেন থেকে সরান এবং প্যানটিকে ভালোভাবে ঠাণ্ডা হতে দিন।


চকো-নলেনগুড় সুফলে

কী কী লাগবে

১ লিটার দুধ

১ চা চামচ লেবুর রস

১০০ গ্রাম নলেন গুড়

১ কাপ হুইপড ক্রিম

২ টেবিল চামচ চকোলেট সিরাপ

কীভাবে বানাবেন

দুধ ফুটিয়ে একটু ঘন করে নিন এবং লেবুর রস যোগ করে ছানা তৈরি করুন।ভালো করে ছেঁকে জল সম্পূর্ণরূপে ছড়িয়ে নিন। এবার এতে নলেনগুড় এবং চকলেট সিরাপ খুব ভালো করে মিশিয়ে নিন এবং মিশ্রণের ১/৩ ভাগ আলাদা করে রাখুন। মিশ্রনের বাকি অংশ পাঁচ মিনিটের জন্য হালকা গরম করে ঠান্ডা করতে দিনI মিশ্রণটি ঠাণ্ডা হওয়ার পরে একটি মিক্সারে ব্লেন্ড করুন যতক্ষণ না পর্যন্ত একেবারে মসৃণ এবং ক্রিমি হয়। এবার একটি চওড়া পাত্র নিয়ে নলেনগুড় এবং চকলেট সিরাপের আলাদা করে রাখা ১/৩ ভাগ মিশ্রণ ছড়িয়ে দিন। এর উপরে সুন্দর করে ছড়িয়ে দিন ব্লেন্ডারে মিশিয়ে নেওয়া বাকি ২/৩ ভাগ মিশ্রণটিI উপরে দিন হুইপড ক্রিম এবং সামান্য তরল নলেনগুড় I একটি সার্ভিং প্লেটে বেকড আপেল রাখুন এবং উপরে থেকে চকো-নলেনগুড় সুফলে সমানভাবে ঢেলে দিনI আধা ঘণ্টা রেফ্রিজারেটরে রেখে সেট করে পরিবেশন করুন।

মানসী সাহা

অরেঞ্জ জেলো পুডিং


কী কী লাগবে

৬ পিস কমলালেবু

২ চা চামচ জেলোটিন

২ চামচ চিনি


কীভাবে বানাবেন

কমলালেবুর রস বার করে চিনি দিয়ে গ্যাসের আগুনে বসিয়ে ফুটিয়ে নিতে হবে। ২ চা চামচ জেলোটিন গুলে রাখতে হবে। এবার ফোটানো রসের মধ্যে জেলোটিন দিয়ে ফুটিয়ে নিয়ে সিলিকনের মোল্ডে কয়েকটা কমলালেবুর কোয়া সাজিয়ে রসটা ঢেলে দিয়ে ঠান্ডা হতে দিতে হবে। ঠান্ডা হলে ফ্রিজে দু এক ঘন্টার জন্য রেখে ফ্রিজ থেকে বার করে মোল্ড আউট করে কয়েকটা বেদানার দানা ছড়িয়ে পরিবেশন করতে হবে।

ক্ষীর কমলা


কী কী লাগবে

২ টো কমলালেবু

৭৫ গ্রাম খোয়া ক্ষীর

২ কাপ লিকুইড দুধ

৩ টেবিল চামচ চিনি

৮ টা পেস্তাবাদাম

৮ টা কাজুবাদাম

১/৩ চামচ এলাচ গুঁড়ো


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে কমলালেবুর উপরের খানিকটা অংশ চাকুর সাহায্যে কেটে নিতে হবে ।

এরপর একটা চামচের ডাটির উল্টো দিক দিয়ে খুব সাবধানে খোলের মধ্যে থেকে কমলালেবুর কোয়া গুলো বার করে স্কিন ও বীজ বার করে ছোট টুকরো করে নিতে হবে।

এবার গ্যাসের আচে একটা প্যানে দুধের সাথে খোয়া ক্ষীর ও চিনি মিশিয়ে ঘন করে জ্বাল করতে হবে।

জ্বালের সময় এলাচ গুঁড়ো ও কাজু পেস্তার কুচি ওর মধ্যে মিশিয়ে দিতে হবে।

এবার মিশ্রণটি ঠান্ডা হলে কমলালেবুর খোলের মধ্যে মিশ্রণটি ঢেলে ফ্রিজে ঘন্টাখানেক রেখে পরিবেশন করুন।

সুতপা বৈদ্য

ক্রিসমাস স্পেশাল কুকিজ


কী কী লাগবে

১ কাপ ময়দা

১০০ গ্রাম মাখন

৪০ গ্রাম চিনির গুঁড়ো

১৫০ গ্রাম ময়দা

২ ফোটা ভ্যানিলা এসেন্স

১ টা ডিম

১ টেবিল চামচ কোকো পাউডার

২ ফোঁটা লাল ফুড কালার( এটি না দিতে চাইলে দেবেন না)

কীভাবে বানাবেন

ডিমের মধ্যে চিনিগুড়ো ও মাখন খুব ভালো করে মিশিয়ে কোকো পাউডার ও লাল ফুড কালার ছাড়া সব কিছু মিশিয়ে একটি ডো বানাতে হবে। এবার অল্প পরিমাণ ডো আলাদা করে তাতে লাল ফুড কালার খুব ভালো করে মিশিয়ে আলাদা করে রাখতে হবে স্নো ম্যানের মাফলারের জন্য।

আর কিছুটা ডো আলাদা করে তাতে কোকো পাউডার মেশাতে হবে কুকিজে ব্রাউন অংশ বানানোর জন্য। এবার এই ডো গুলো দিয়ে এই ছবির মতো করে সবগুলো গড়ে ১৫ মিনিট বা তার বেশি ফ্রিজে রেখে দিতে হবে। এরপর ওভেন ১৮০ -২০০°C এ প্রিহিট করতে হবে (গ্যাসেও একটি প্যানে কম আঁচে প্রিহিট করতে পারেন) ফ্রিজ থেকে বের করে কুকিজ গুলি ১০ মিনিটের জন্য বেক করতে হবে, হয়ে গেলে বের করে ঠান্ডা হতে দিতে হবে, ঠান্ডা হওয়ার সাথে সাথেই এগুলো শক্ত হয়ে যাবে। এবার গুলি পরিবেশন করুন।(নিজের ইচ্ছে মতো আকার দিয়েও গড়ে নিতে পারেন এই কুকিজগুলো।)

সোমা রায়

ক্রিসমাস স্পেশাল চিকেন


কী কী লাগবে

১ কেজি চিকেন

২৫০ গ্রাম আলু

৬ টেবিল চামচ বাটার

২ টো পেঁয়াজ

২ টো টমেটো

১ টা গোটা রসুন

১ চা চামচ অরেঞ্জ যেস্ট

২ টো গাজর

১ টা কমলা লেবু

১ টা পাতি লেবু

১ চা চামচ আদা রসুন বাটা

১ চা চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো

১ চা চামচ ধনেপাতা কুচি

১/২ কাপ চিকেন স্টক

স্বাদ অনুযায়ী নুন


কীভাবে বানাবেন

উষ্ণ গরম জলে নুন দিয়ে চিকেন দিয়ে ৩০ মিনিট রাখতে হবে।

একটা পাত্রে বাটার আর গোলমরিচ গুঁড়ো, আদা রসুন বাটা, ধনেপাতা কুচি, নুন, অরেঞ্জ জেস্ট, পাতি লেবুর রস দিয়ে মিক্স করে নিয়ে চিকেন গুলো জল থেকে তুলে এই মিক্স দিয়ে ম্যারিনেট করে রাখতে হবে ১৫ মিনিট। এবার বেকিং ট্রে তে আলু,গাজর, টমেটো,পেঁয়াজ,রসুন সাজিয়ে ওপরে ম্যারিনেট করা চিকেন দিয়ে তার ওপরে চিকেন স্টক আর অরেঞ্জ জুস দিয়ে ২০০° তে বেক করতে হবে ৪৫ থেকে ৫০ মিনিট।


পৌলমী পান্ডে

ডিম রোলআপ

কী কী লাগবে

২ টি বড় ডিম

১ টেবিল চামচ কাটা ধনেপাতা

২ টেবিল চামচ কাটা পেঁয়াজ

২ টেবিল চামচ কাটা গাজর

১ টেবিল চামচ গ্রেট করা মোজেরেলা

১ টেবিল চামচ লবণ এবং গোলমরিচ

১ টেবিল চামচ মাখন

২ টেবিল চামচ দুধ


কীভাবে বানাবেন

ডিমের সাদা অংশ থেকে ডিমের কুসুম আলাদা করুন। একটি পাত্রে ডিমের সাদা অংশ, সবজি, ধনেপাতা, দুধ, লবণ এবং গোলমরিচ বিট করুন। অন্য একটি পাত্রে কুসুম, লবণ এবং মরিচ বিট করুন। একপাশে রাখুন। একটি নন-স্টিক ফ্রাইং প্যান গরম করুন, মাখন যোগ করুন, তারপরে ডিমের সাদা অংশ ঢেলে দিন এবং এক মিনিট বা ডিমটি সেট না হওয়া পর্যন্ত রান্না করুন। মোজেরেলা দিন। সাদা অংশটি রোল করুন, এটি একটি নলাকার আকৃতি তৈরি করবে। প্যান থেকে এটি সরাবেন না। এবার পুরো প্যানে কুসুম ঢেলে দিন, কিছুক্ষণ সেট হতে দিন। এবার কুসুমের ওপরে নলাকার সাদা অংশটি এনে কুসুম দিয়ে গড়িয়ে নিন। পছন্দসই আকারে কেটে নিন। যেকোনো ধরনের সসের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

নুডলস র‍্যাপ প্রন


কী কী লাগবে

৪ টি গলদা চিংড়ি

১ কাপ নুডলস

১/৪ কাপ ময়দা

১ চা চামচ গোলমরিচ গুঁড়া

১ চা চামচ কাশ্মিরী লংকা গুঁড়া

১/২ চা চামচ আদা বাটা

১/২ চা চামচ রসুন বাটা

প্রয়োজন মত নুন

প্রয়োজন মত সঃ তেল/ সাদা তেল

২ চা চামচ লেবুর রস

সাজানোর জন্য শশা + পেঁয়াজ স্লাইস করা

২ চা চামচ টমেটো কেচাপ


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে চিংড়ি মাছ পরিষ্কার করে মাথার অংশ বাদ দিয়ে লেজের অংশ রেখে কেটে নিতে হবে ৷

একটি পাত্রে ১ গ্লাস জল ফুটে উঠলে ১ চা চামচ সাদা তেল ও সামান্য নুন মিশিয়ে নুডলস গুলো লম্বা অবস্থায় সেদ্ধ করে রাখতে হবে ৷ একটু শক্তভাবে ৭০% সেদ্ধ করতে হবে ৷

চিংড়ি মাছ গুলি লেবুর রস নুন আদা রসুন বাটা, সামান্য গোলমরিচ ও লংকা গুঁড়ো দিয়ে ভালো মত মাখিয়ে কিছুক্ষন ম্যারিনেট করতে হবে ৷ একটি প্লেটে ময়দা ও নুন ও বাকি গোলমরিচ , লংকা গুড়া মিশিয়ে ঐ ম্যারিনেট করা চিংড়িগুলো কোট করতে হবে ৷ এবার সেদ্ধ নুডলস নিয়ে ঐ কোট করা চিংড়ির গায়ে (র‍্যাপ ) খুব সাবধানে পেচিয়ে নিতে হবে ৷ আর একবার চিংড়িগুলো ময়দায় কোট করে , গা টা ঝেড়ে নিয়ে ফ্রিজে সেট করার জন্য রাখতে হবে ১ ঘন্টা। একঘন্টা পর প্যানে অনেকটা সঃ তেল গরম করে আঁচ মাঝারি করে র‍্যাপ চিংড়িগুলো সোনালী করে ভেজে প্লেটে টিসু পেপার রেখে তুলে নিতে হবে ৷ ইচ্ছে মতো সাজিয়ে শশা পেঁয়াজ টমেটো কেচাপ সহ পরিবেশন করুন।

শ্রাবন্তী দত্ত

বিস্কুট পাফস

কী কী লাগবে

১২ টি যে কোনো নোনতা বিস্কুট

১০০ গ্রাম সুজি

১/২ কাপ কুচোনো পেঁয়াজ

২ টেবিল চামচ কুচোনো রসুন

১/৪ কাপ কুচোনো ধনেপাতা

১/২ চা চামচ চিলি ফ্লেক্স

১/২ চা চামচ অরিগ্যানো

১/২ চা চামচ গোল মরিচ গুঁড়ো

১/২ চা চামচ খাবার সোডা

১ টি ডিম

২ টেবিল চামচ মাখন

১/২ কাপ সাদা তেল

স্বাদমত নুন


কীভাবে বানাবেন

সুজি অল্প গরম জলে কিছুক্ষন ভিজিয়ে রেখে তারপর পেস্ট করে নিন। একটি পাত্রে নোনতা বিস্কুট গুলি নিয়ে হাত দিয়ে ভালো করে ভেঙে নিন। তারপর তাতে মেশান পেস্ট করে রাখা সুজি, কুচোনো পেঁয়াজ, কুচোনো রসুন, কুচোনো ধনেপাতা, চিলি ফ্লেক্স, অরিগ্যানো, গোল মরিচ গুঁড়ো, খাবার সোডা, ফেটানো ডিম ও নুন। খুব ভালো করে মেখে মন্ড বানিয়ে নিন। তারপর ১ টেবিল চামচ মাখন দিয়ে আবার ভালো করে মেখে নিন। এবারে এই মন্ড থেকে অল্প অল্প করে নিয়ে একটু মোটা করে গোল চ্যাপ্টা আকারে গড়ে নিযে সাদা তেলের সাথে বাকি ১ টেবিল চামচ মাখন মিশিয়ে গরম করে বেশ লাল লাল করে ভেজে নিন। রেডি হয়ে গেলো বিস্কুট পাফস। ইচ্ছেমত সস বা ডিপের সাথে পরিবেশন করুন এই দারুন সুস্বাদু স্ন্যাক্স। আমি টমেটো-ধনিয়া ডিপের সাথে পরিবেশন করেছি।

প্রন ককটেল


কী কী লাগবে

২৫০ গ্রাম মাঝারি সাইজের চিংড়ি মাছ

১ কাপ প্লেইন মেয়োনিজ

৩ টেবিল চামচ মাস্টার্ড মেয়োনিজ

২ টেবিল চামচ উস্টারশায়ার সস

২ টেবিল চামচ ক্যাপসিকো সস

১ টেবিল চামচ চিল্লি-টমেটো সস

৪ টি লেটুস পাতা

২ টেবিল চামচ পাতিলেবুর রস

১ চা চামচ গোল মরিচ গুঁড়ো

স্বাদমত নুন


কীভাবে বানাবেন

চিংড়ি মাছ খোলা ছাড়িয়ে পরিষ্কার করে ধুয়ে নিয়ে তারপর পরিমান মতো নুন ও জল দিয়ে সেদ্ধ করে নিন। ২ টি সেদ্ধ করা চিংড়ি মাছ রেখে বাকি চিংড়ি মাছ মিক্সিতে দিয়ে একবার ঘুরিয়ে কিমা করে নিন। মিহি করবেন না, একটু দানা দানা থাকবে। কিমা করা চিংড়ি মাছে পাতিলেবুর রস ও ১/২ চা চামচ গোল মরিচ গুঁড়ো মাখিয়ে রাখুন। লেটুস পাতা অল্প একটু ভাপিয়ে নিয়ে তারপর ঠান্ডা জলে (বরফ জল হলে ভালো হয়) কিছুক্ষন ভিজিয়ে রেখে তারপর শুকিয়ে নিয়ে ২ টি লেটুস পাতা কুচিয়ে রেখে বাকি ২ টি গোটা রেখে দিন। এবার কিমা করা চিংড়ি মাছ, প্লেইন মেয়োনিজ, মাস্টার্ড মেয়োনিজ, উস্টারশায়ার সস, ক্যাপসিকো সস, চিল্লি টমেটো সস, কুচোনো লেটুস পাতা, বাকি ১/২ চা চামচ গোল মরিচ গুঁড়ো ও স্বাদমত নুন সব এক সাথে খুব ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে ফ্রিজে কিছুক্ষন রেখে ঠান্ডা হতে দিন। তারপর সারভিং গ্লাসে গোটা লেটুস পাতা রেখে ঠান্ডা চিংড়ি-মেয়োনিজ-সস মিশ্রণ দিন। রেখে দেওয়া ২ টি সেদ্ধ চিংড়ি মাছ দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন প্রন ককটেল।

ইতি দে

সুগার ফ্রি সন্দেশ


কী কী লাগবে

১ কেজি লিকুইড দুধ

৫০০ গ্রাম প্যাকেটের দুধ (মেট্রো ডায়েরী হলেও হবে) দুচামচ ভিনিগার।

গার্নিশিং এর জন্য কিছুটা পেস্তা গুঁড়ো।

সন্দেশ বানানোর জন্য চৌকোনা একটা পাত্র


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে গ্যাস জ্বালিয়ে কড়াই বসিয়ে অল্প জল দিয়ে ১ লিটার দুধ ঢেলে দিতে হবে , দুধটা যাতে লেগে না যায়। এবার দুধটা ঘন ঘন নাড়া দিতে হবে জাল দিয়ে ক্ষীরের মতো ঘন করে নিতে হবে। তারপর প্যাকেটের ৫০০দুধ জ্বাল দিতে হবে যখন ফুটে যাবে গ্যাস বন্ধ করে কিছুক্ষণ বাদে ভিনেগার দিতে হবে, দু'চামচ ভিনেগার দিয়ে নাড়তে থাকতে হবে ছানা কেটে গেলে ছানাটাকে ভালো করে ছেকে চিপে নিতে হবে। তারপর ছানাটা যখন ঠান্ডা হয়ে যাবে হাতের সাহায্য মিহি করে নিতে হবে। ক্ষীরের মতো যে দুধটা ওটার মধ্যে ছানাটাকে ঢেলে দিতে হবে দিয়ে নাড়াতে হবে নাড়িয়ে নিয়ে যখন ঘন হয়ে যাবে গ্যাস বন্ধ করে দিতে হবে। তা না হলে সন্দেশ শক্ত হয়ে যাবে। এবারে চৌকো পাত্রের মধ্যে একটু বাটার ব্রাশ করে নিতে হবে। তারপর ঘন মিশ্রণটি ঢেলে দিতে হবে। এক ঘন্টা ফ্রিজে রেখে দিয়ে বাইরে আনতে হবে। এবারে চৌকো পাত্রটি একটা প্লেটের ওপরে উল্টিয়ে দিলেই রেডি হবে সন্দেশ। ছুরির সাহায্যে চৌকো করে সন্দেশের আকারে কেটে নিতে হবে। এবারে প্লেটের ওপরে সাজিয়ে সন্দেশের ওপরে পেস্তার গুঁড়ো গুলোকে অল্প ছড়িয়ে পরিবেশন করতে হবে।

পূর্বা ব্যানার্জী দাস

রোজ কুকিজ বা আচপ্পম


কী কী লাগবে

১ টি ডিম

১/৪ চা চামচ নুন

১/৪ কাপ গুঁড়ো চিনি

১/২ কাপ দুধ

১ কাপ ময়দা

১/৩ কাপ চাল গুঁড়ো

১ চা চামচ রান্নার তেল

১/৪ চা চামচ কালো তিল


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে একটি পাত্রে ডিম , দুধ , নুন ও চিনি ভালো করে ফেটিয়ে নিতে হবে। এরপর একে একে ময়দা, চাল গুঁড়ো,তিল এবং এক চামচ তেল দিয়ে ব্যাটার টি তৈরি করে নিতে হবে। গ্যাস অন করে একটি নন স্টিক কড়াই তে ডুবো তেল দিয়ে রোজ কুকিজ এর ছাঁচ টি গরম হতে দিতে হবে মিনিট তিনেক । এরপর তেল ঝরিয়ে ছাঁচ টি ওই ব্যাটারে ডুবিয়ে আবার কড়াইয়ের গরম তেলে দিয়ে আস্তে আস্তে ঝাঁকাতে হবে, কুকিজ টি ছাঁচ থেকে খুলে আলাদা হয়ে যাবে। এইভাবে একটি একটি করে কুকিজ ভেজে তুলে নিতে হবে। মুচমুচে রোজ কুকিজ পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত আর ঠাণ্ডা হবার পর এয়ার টাইট কৌটোয় রেখে দিলে অনেকদিন ভালো থাকে।

শুক্লা শীল

পেস্তো গ্ৰিল চিকেন


কী কী লাগবে

৫০০ গ্ৰাম বোনলেস চিকেন

১ চামচ লেবুর রস

১.৫ চামচ কালো গোলমরিচের গুঁড়ো

১ কাপ পুদিনা পাতা

১ কাপ ধনেপাতা

৫ টি কাঁচা লঙ্কা

১৫ টি কাজুবাদাম

৮ কোয়া রসুন

১/২ ক্যাপসিকাম কুচি করে কাটা

১ টি ছোট পিঁয়াজ কুচি করে কাটা

২ টেবিল চামচ টকদই

২ টি আমূল চিজের কিউব

১ টেবিল চামচ সাদা তেল

১ টেবিল চামচ বাটার


কীভাবে বানাবেন

বোনলেস চিকেন লম্বাটে করে কেটে, ভাড়ি চামচ বা হাতার পিছনের অংশ দিয়ে আঘাত করে ফ্লাট করে নিতে হবে। এবার এই চিকেনের টুকরো গুলোকে, ১ টেবিল চামচ লেবুর রস,১ টেবিল চামচ সাদা তেল, ১ চামচ গোলমরিচের গুঁড়ো ও পরিমাণ মতো নুন দিয়ে, খুব ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে অন্তত পক্ষে আধা ঘণ্টা ঢেকে রেখে দিতে হবে। একটি মিক্সার গ্ৰাইন্ডারের বোলে, ধনেপাতা, পুদিনা পাতা, কাঁচা লঙ্কা, রসুন , কাজুবাদাম ১/২ চামচ কালো গোলমরিচের গুঁড়ো, ১ টেবিল চামচ টকদই, পরিমাণ মতো নুন ও সামান্য একটু জল দিয়ে ঘণ পেস্ট করে পেস্তো সস তৈরি করে নিতে হবে। এক ঘন্টা পর,ম্যারিনেট করা চিকেনের একটি টুকরো নিয়ে এরমধ্যে ১/২ চামচ পেস্ত সস, উপরিভাগে খুব ভালো করে লাগিয়ে, একটু পিঁয়াজ ও ক্যাপসিকাম কুচি দিয়ে, তার উপর থেকে চিজ গ্ৰেট করে ছড়িয়ে রোল করে মুড়ে, টুথপিক দিয়ে আটকে দিতে হবে। সমস্ত চিকেনের টুকরো গুলো একইভাবে মুড়ে নিতে হবে। সমস্ত চিকেনের টুকরো মুড়ে নেবার পর বাকি পেস্ত সসের মধ্যে ১ টেবিল চামচ টকদই ও ১ চিমটি নুন দিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে,গ্ৰিল চিকেন পেস্তর সাথে পরিবেশন করার জন্য চাটনি তৈরি করে নিতে হবে।

এবার একটি গ্যাস ওভেন জ্বালিয়ে, গ্ৰিল প্যান গরম করে,এর মধ্যে বাটার ব্রাস করে, চিকেনের টুকরো গুলি গ্ৰিল করে নিতে হবে, ৫ মিনিট পর পর ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে চিকেনের সমস্ত অংশ ভালো করে গ্ৰিল করে নিতে হবে। চিকেনের সমস্ত অংশ ভালো করে গ্ৰিল হলে, নামিয়ে, পেস্তো সস বা চাটনি ও স্যালাডের সাথে পরিবেশন করুন। ক্রিসমাস পার্টির মতো যে কোন পার্টিই জমে উঠবে।

তন্দ্রা নাথ

এগলেস ক্যারট মুসাম্বি টি কেক


কী কী লাগবে

এক কাপ ময়দা

হাফ কাপ গ্রেড করা গাজর

হাফ কাপ চিনি

হাফ কাপ মেল্ট করা মাখন

হাফ কাপের একটু বেশি মুসম্বির রস

একটা ইনোর প্যাকেট


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে ময়দা ভালো করে চেলে নিয়ে একটা পাত্রে রাখতে হবে।লেবুর রস ছেঁকে নিয়ে রাখতে হবে।গাজর গ্রেড করে রাখতে হবে।

একটা পাত্রে ময়দা নিয়ে তাতে প্রথমে মেল্ট করা মাখন দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে লেবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে।এর পর গ্রেড করে রাখা গাজর দিয়ে দিতে হবে,এড করতে হবে চিনির গুঁড়ো।

সব কিছু খুব ভালো করে ব্লেন্ড করে নিতে হবে।বেশ কিছুক্ষণ ব্লেন্ড করার পর ইনো মিশিয়ে নিতে হবে।

একটি কেক বোলে মাখন ব্রাশ করে সাদা পেপার দিয়ে তৈরি করে রাখা ব্যাটার টা ঢেলে দিতে হবে।এবার গ্যাসে করাই বসিয়ে তাকে একটু প্রি হিট করে নিয়ে একটি স্ট্যান্ড বসিয়ে কেক বো ল বসিয়ে মিডিয়াম টু লো ফ্লেমে ২০ মিনিট রেখে নামিয়ে ঠান্ডা হলে সার্ভ করতে হবে। সন্ধ্যে বেলা চায়ের সাথে এই কেক সত্যিই জমে যাবেই যাবে।

মালাই চমচম


কী কী লাগবে

1.5 লিটার দুধ

হাফ কাপ গুঁড়ো চিনি

হাফ কাপ গুঁড়ো দুধ

হাফ চামচ এলাচের গুঁড়ো

তিন চামচ ঘি

এক চিমটি কেশর

এক চামচ কাজু গুঁড়ো

এক চামচ পেস্তা গুঁড়ো

এক চামচ আমন্ড গুঁড়ো

পরিমান মতো গ্রেড করা ডেয়ারী মিল্ক কিউব

সাজানোর জন্যে চকোলেট কিউব


কীভাবে বানাবেন

এক লিটার দুধ প্রথমে খুব ভালো করে জ্বাল দিতে হবে ,পরে পাতিলেবু দিয়ে ছানা কাটিয়ে একটি ছাঁকনির উপর রেখে পুরো জলটা ঝাড়িয়ে নিতে হবে।তারপর পেস্ট করে একটি পাত্রে রাখতে হবে। ওপর দিকে যে হাফ লিটার দুধ টা থাকবে সেটা জ্বাল দিয়ে ঘন করে নিয়ে রাখতে হবে।

গ্যাসে একটি প্যান বসিয়ে তাতে ঘি দিয়ে গরম হলে তাতে ছানার পেস্ট দিয়ে গ্যাস কমিয়ে হালকা হাতে সমানে নাড়তে হবে।এড করে দিতে হবে চিনি ,এলাচের গুঁড়ো ,গুঁড়ো দুধ ও গুঁড়ো করে রাখা কাজু,পেস্তা ,আলমন্ড।সব হালকা হাতে নেড়েচেড়ে পাক দিয়ে নিতে হবে।পাক তৈরি হয়ে গেলে নামিয়ে একটা প্লেটে রাখতে হবে। ঠান্ডা হয়ে আসলে ছোটো ছোটো গোল গোল করে কেটে নিয়ে একটু চমচমের মতো সেপ দিয়ে তৈরি করে একটি প্লেটে রাখতে হবে।

এবার মালাই টা তৈরি করে নিতে হবে। দুধ খুব ঘন করে জ্বাল দিয়ে তাতে চিনি এলাচের গুঁড়ো ও কেশর দিয়ে একদম ঘন করে নামিয়ে নিতে হবে।

এখানে রাংতা দিয়ে আমি ছোটো ছোটো বোলের মতো করে নিয়েছি। সেগুলো একটি ট্রে তে সাজিয়ে বসিয়ে দিয়ে তার উপর চমচম গুলো একটা একটা করে দিয়ে তার উপর ঘন করে দুধ জ্বাল দিয়ে তৈরি করে রাখা মালাই ঢেলে দিয়ে উপর থেকে গ্রেড করা ডেযারী মিল্ক,কাজু,পেস্তা,ও আমন্ড ছড়িয়ে সুন্দর করে সার্ভ করতে হবে।

চিলি সুজি ইডলি


কী কী লাগবে

সুজি হাফ কাপ

একটু কারী পাতা

হাফ চামচ সর্ষে

একটি ক্যাপসিকাম

একটি পিয়াঁজ

পাঁচটি রসুনের কোয়া

এক চামচ রেড চিলি সস

দুই চামচ টমেটো সস

এক চামচ সোয়া সস

এক চামচ সাদা তেল

স্বাদমতো নুন

রোস্টেড সাদা তিল সামান্য

কালো সর্ষে সামান্য


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে সুজি ভালো করে চেলে নিয়ে একটি পাত্রে ভিজিয়ে রাখতে হবে।একদম পরিমিত জল দিয়ে।পিয়াঁজ ও ক্যাপসিকাম ধুয়ে টুকরো করে নিতে হবে।রসুনের কোয়া একেবারে ছোট্ট করে কেটে নিতে হবে।

কারী পাতা খুব ভালো করে ধুয়ে কড়াইতে সামান্য তেল দিয়ে হালকা করে ফ্রাই করে তুলে নিতে হবে।ওই তেলেই সামান্য একটু সর্ষে দিয়ে ক্যাপসিকাম ও পিয়াজের টুকরো হালকা ভাজতে হবে।

ভেজানো সুজি একটা পাত্রে নিয়ে তাতে নুন,ফ্রাই করা কারী পাতা ও সর্ষে দিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে।আর একটা আপে প্যান গ্যাসে বসিয়ে তাতে অয়েল ব্রাশ করে একটু একটু করে দিয়ে চাপা দিয়ে ইডলি তৈরি করে নিতে হবে।

এবার যে কড়াইতে ক্যাপসিকাম ও পিয়াঁজ ,সর্ষে ভেজে নেওয়া হয়ে ছিলো তাতে রসুন কুচি দিয়ে খুব ভালো করে নেড়েচেড়ে পিয়াঁজ,ক্যাপসিকাম ছেড়ে দিতে হবে আর দিয়ে দিতে হবে সোয়া সস,রেড চিলি সস ও টমেটো সস।সামান্য নুন দিয়ে খুব ভালো করে নেড়েচেড়ে ইডলি গুলো দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নামিয়ে নিতে হবে।আর উপর থেকে সামান্য রোস্টেড সাদা তিল দিয়ে প্লেটিং করে পরিবেশন করতে হবে।

বন্ধুরা অনেক ধরনের চিলি পদ খেয়েছেন এটা একবার তৈরি করে দেখার অনুরোধ রইলো।

মৌসুমী দাস

ছানার পুর ভরা ক্যাডবেরি সন্দেশ


কী কী লাগবে

১ লিটার টোনড দুধ

২ টি পাতিলেবুর রস

১৫০ গ্রাম গুঁড়ো দুধ

৬ চা চামচ চিনি

১/৩ চা চামচ ছোট এলাচ গুঁড়ো

১.৫ চা চামচ কিসমিস কুচি

৩ টেবিল চামচ পেস্তা কুচি

কয়েকটা গোলাপ ফুলের পাপড়ি

সামান্য ঘি

১.৫ কাপ ক্যাডবেরি কুচি (আমি ডেয়ারী মিল্ক ব্যাবহার করেছি, এছাড়া বোর্নভিটা বা মাইলো ও ব্যবহার করা যেতে পারে)


কীভাবে বানাবেন

দুধ জ্বাল দিয়ে ৩-৪ টেবিল চামচ সরিয়ে রাখুন।

আচঁ ঢিমে করে বাকি দুধে লেবুর রস দিয়ে দিন। আস্তে আস্তে নাড়ুন। দুধ পুরোপুরি কেটে ছানা হয়ে গেলে ছাকনির উপরে পরিষ্কার কাপড় রেখে ছেঁকে, ঠান্ডা জল দিয়ে ভাল করে ধুয়ে আবার ছেঁকে নিন। অন্তত ৩০ মিনিট এই অবস্থায়ই ঝুলিয়ে রাখুন। অতিরিক্ত জল ঝরে যাবে।

এবারে ছানা প্লেটে নিয়ে হাতের সাহায্যে আলতোভাবে ও সাবধানে মাখতে হবে। ছানা মোলায়েম হয়ে আসলে এটা থেকে তেলের মত দেখা দিলে ছানা তৈরী।

চিনি গুঁড়ো করে নিন।

একটা ননস্টিক কড়াইতে ১/৩ ভাগ ছানা দিন। এর মধ্যে ৩ চা চামচ গুঁঁড়ো চিনি ও ২ চা চামচ গুঁঁড়ো দুধ দিন। আঁচ একেবারে কমিয়ে রাখতে হবে। চিনি, গুঁড়ো দুধ ও ছানা ভালো ভাবে মিশিয়ে আবার ছানার ঘনত্বে আসলে কিসমিস ও ছোট এলাচ গুঁড়ো দিয়ে নামিয়ে নিন। হাতে একটু ঘি নিয়ে ছোট ছোট বলের আকারে গড়ে সরিয়ে রাখুন।

একটা ননস্টিক কড়াইতে ক্যাডবেরি ও সরিয়ে রাখা দুধ নিন। ক্যাডবেরি গলে সসের মতো ঘনত্ব হলে আধ কাপ সরিয়ে রাখুন।

বাকি সসের মধ্যে বাকি ছানা টা দিয়ে দিন। বাকি গুঁড়ো চিনি ও গুঁড়ো দুধ দিন। আঁচ একেবারে কমিয়ে রাখতে হবে। সব কিছু ভালো ভাবে মিশিয়ে আবার ছানার ঘনত্বে আসলে পেস্তা কুচি দিয়ে নামিয়ে নিন।

এবার এর থেকে আগের ছানার বলের থেকে দ্বিগুণ আকারের লেচি কাটুন। হাতে একটু ঘি নিয়ে লেচি গুলো বড় করুন। অনেকটা লুচির মতো। ভিতরে আধ চা চামচ চকোলেট সস্ দিয়ে ছানার বল গুলো দিয়ে দিন। মুখ বন্ধ করুন। অনেকটা কচুরির পুর ভরার মতো। হাতে আবার একটু ঘি নিয়ে গোল আকারে গড়ে ওপর থেকে চকোলেট সস্ ও গোলাপ পাতা কুচি দিয়ে পরিবেশন করুন।

মতিচুর ও শুকনো ফলের কাস্টার্ড


কী কী লাগবে

১/২ লিটার দুধ

২ টেবিল চামচ ভ্যানিলা কাস্টার্ড পাউডার

৩ টি মতিচুরের লাড্ডু

১.৫ চা চামচ খেজুর কুচি

১.৫ চা চামচ কাজু কুচি

১.৫ চা চামচ কিসমিস কুচি

৩ চা চামচ চিনি


কীভাবে বানাবেন

দুধ জ্বাল দিয়ে আধ কাপ দুধ সরিয়ে ঠান্ডা করে রাখুন।

ঠান্ডা আধ কাপ দুধে কাস্টার্ড পাউডার দিয়ে মিশিয়ে নিন।

দুধ আবার জ্বালে বসান। চিনি দিন। ফুটে উঠলে আঁচ ঢিমে করে অল্প অল্প করে কাস্টার্ডের মিশ্রণ টা দিতে থাকুন।

পুরো মিশ্রণ দেওয়া হয়ে গেলে ২-৩ মিনিট নাড়তে থাকুন। তারপর দুটি মতিচুরের লাড্ডু ভেঙে গুঁড়ো করে দিয়ে দিন। ১ চা চামচ করে শুকনো ফলের কুচি দিয়ে ভালো করে নেড়ে ঘন করে বাটিতে ঢেলে নিন ।

ওপর থেকে বাকি শুকনো ফলের কুচি ও মতিচুর লাড্ডুর গুঁড়ো ছড়িয়ে ইচ্ছা মতো সাজিয়ে পরিবেশন করুন ।

চকোলেট সন্দেশ


কী কী লাগবে

১/২ লিটার ফুল ফ্যাট দুধ

১ টি পাতিলেবুর রস

৩ চা চামচ চিনি

৩ চা চামচ পেস্তা কুচি

পরিমাণ মত ঘি

৩/৪ কাপ ক্যাডবেরি কুচি (আমি ডেয়ারী মিল্ক ব্যবহার করেছি)

৭৫ গ্রাম গুঁড়ো দুধ


কীভাবে বানাবেন

দুধ জ্বাল দিন।

ফুটে উঠলে আচঁ কমিয়ে দুধে লেবুর রস দিয়ে দিন। আস্তে আস্তে নাড়ুন। দুধ পুরোপুরি কেটে ছানা হয়ে গেলে ছাকনির উপরে পরিষ্কার কাপড় রেখে ছেঁকে, ঠান্ডা জল দিয়ে ভাল করে ধুয়ে আবার ছেঁকে নিন। অন্তত ৩০ মিনিট এই অবস্থায়ই ঝুলিয়ে রাখুন। অতিরিক্ত জল ঝরে যাবে।

এবারে ছানা প্লেটে নিয়ে হাতের সাহায্যে আলতোভাবে ও সাবধানে মাখতে হবে। ছানা মোলায়েম হয়ে আসলে এটা থেকে তেলের মত দেখা দিলে ছানা তৈরী। চিনি গুঁড়ো করে নিন।

একটা ননস্টিক কড়াইতে ক্যাডবেরি দিন। গলে গেলে তাতে ছানা দিন। এর মধ্যে গুঁঁড়ো চিনি ও গুঁঁড়ো দুধ দিন। আঁচ একেবারে কমিয়ে রাখতে হবে। চিনি, গুঁড়ো দুধ ও ছানা ভালো ভাবে মিশিয়ে আবার ছানার ঘনত্বে আসলে ২ চা চামচ পেস্তা কুচি দিয়ে নামিয়ে নিন। হাতে একটু ঘি নিয়ে সমান ভাবে ছোট ছোট বলের আকারে কেটে নিন। এবার পছন্দসই সন্দেশের ছাঁচে অল্প ঘি মাখিয়ে চকোলেট ও ছানার বল গুলো দিয়ে সন্দেশ গড়ে উপর থেকে বাকি পেস্তা কুচি ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

মমতাজ বেগম

সহজ চকোলেট কেক


কী কী লাগবে

ডিম: ৩টে

তরল দুধ: ১ কাপ

ময়দা: ২ কাপ

চিনি গুঁড়ো: ১.১/২ কাপ( দেড় কাপ)

গলানো মাখন: ১/২ কাপ

কোকো পাউডার: ২ টেবিল চামচ

সোডা বাই কার্বোনেট : ১ চা চামচ

হাফ চেরি ফল: ৫ টা

হাফ কাজু বাদাম ১০ টা

প্রয়োজন মতো ফয়েল পেপার


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে ফয়েল পেপার কাটিং করে সেই ফয়েল পেপার দিয়ে অ্যালুমিনিয়ামের পেয়ালাগুলি মুড়িয়ে রাখুন। একটা পাত্রে ডিম ও চিনি গুঁড়ো খুব ভালোভাবে ঘন করে ফেটিয়ে রাখুন। একটা পাত্রে ডিম ও চিনি গুঁড়ো খুব ভালোভাবে ঘন করে ফেটিয়ে রাখুন। অন্য একটি পাত্রে ময়দা, কোকো পাউডার, সোডা  বাই  কার্বোনেট ও গলানো মাখন একসঙ্গে মিশিয়ে নিন।

ফয়েল পেপার মুড়িয়ে রাখা পেয়ালা গুলিতে সামান্য করে গলানো মাখন ব্রাশ করে নিন।

এবারে ঐ দুটি মিশ্রণ একসাথে মিশিয়ে নিয়ে খুব ভালোভাবে ফেটিয়ে নিয়ে পেয়ালা গুলিতে পরিমাণ মতো ঢেলে দিন ।

তারপর পেয়ালা গুলি মাইক্রো ওভেনে ১৭৫ ডিগ্রী ফারেনহাইট তাপমাত্রায় পঁয়তাল্লিশ মিনিট বেক করুন।

পঁয়তাল্লিশ মিনিট পরে বের করে একটি টুথ পিক পিয়ার্স করে দেখে নিন।

কেক গরম থাকাকালীন অবস্থায় চেরি ফল ও কাজু বাদাম কুচি উপরে ছড়িয়ে দিন।

সহজ চকোলেট কেক তৈরি, পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত।

নারকেলের ভাজা বিস্কুট


কী কী লাগবে

ময়দা: ১ কাপ

গমের আটা: ১ কাপ

নারকেল কোরা: ১ কাপ

চিনি গুঁড়ো: ১.১/২ (দেড় কাপ)

ঘি : ২ টেবিল চামচ

এলাচের গুঁড়া: ২ চিমটে

প্রয়োজন মতো সাদা তেল বিস্কুট ভেজে তুলে নেওয়ার জন্য

তরল দুধ পরিমাণ মতো


কীভাবে বানাবেন

একটি গামলা পাত্রে আটা ও ময়দা মিশিয়ে নিয়ে ঘি গরম করে ঢেলে ভালো করে ময়ান দিয়ে নিন।

এবার নারকেল কোরা, চিনি গুঁড়ো, এলাচের গুঁড়া মিশিয়ে নিন।

তারপর আস্তে আস্তে লিয়ুক ওয়ার্ম দুধ ঢেলে ঠেসে ঠেসে একটা শক্ত মতো মন্ড তৈরি করে নিয়ে রাখুন ।

মন্ডটা পাঁচ মিনিট ঢাকা দিয়ে রেখে দিন।

পাঁচ মিনিট পরে ঐ মন্ড থেকে গোল গোল করে কেটে নিয়ে পিরে বেলনাতে তেল দিয়ে মোটা মোটা রুটি বানিয়ে নিন।

একটা গোল কৌটোর ঢাকনা দিয়ে বিস্কুটের আকারে গোল গোল করে কেটে নিন। তেল গরম করে অল্প আঁচে ভেজে তুলে নিলেই তৈরি।

রুমকি দাস

পিনাট কেশর মোমো


কী কী লাগবে

ময়দা ১০০ গ্রাম

ছানা ৫০ গ্রাম

বাদাম ১০০ গ্রাম(বাদাম গুঁড়ো করে নিতে হবে।)

মিল্ক মেড ১ কাপ

কেশর ১ চামচ

দুধ ১ কাপ

এলাচ গুঁড়ো সামান্য

জল ১ কাপ

ঘি ২ চামচ


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে জল দিয়ে ময়দাটা ভাল করে মেখে নিতে হবে।কড়া গরম হলে ঘি দিয়ে দিতে হবে। এরপর বাদাম গুঁড়ো দিয়ে হালকা ভাবে নেড়ে নিতে হবে। গ্যাস ওভেন টা কমিয়ে রাখতে হবে। দুধের মধ্যে ভিজিয়ে রাখা কেশর দিয়ে দিতে হবে। একটু নাড়াচাড়া করার পর ছানা দিতে হবে তারপর কনডেন্স মিল্ক দিয়ে ভালো করে নাড়াচাড়া করতে করতে যখন একদম শুকিয়ে যাবে এলাচ গুঁড়ো দিয়ে নামিয়ে নিতে হবে।

মেখে রাখা ময়দা টা ছোট ছোট লেচি করে কেটে নিয়ে ছোট করে গোল করে বেলে নিতে হবে।

এরপর বাদামের পুর দিয়ে যে কোনো সেপে তৈরি করে নিতে হবে মোমো।

এবার মোমো তৈরি করা পাত্রে মোমো গুলো সাজিয়ে ভাপিয়ে নিতে হবে। হয়ে গেলে নামিয়ে নিতে হবে।

উপর থেকে কেশর দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন পিনাট কেশর মোমো।

প্রতিতী দাসগুপ্ত ঘোষ

রেড ভেলভেট কাপ কেক


কী কী লাগবে

* এক কাপ ময়দা

* হাফ কাপ গুড়ো চিনি

* ডিম দুটো

* ভ্যানিলা এসেন্স এক চামচ

* সাদা তেল ১/৩ কাপ

* বেকিং পাউডার এক চা চামচ

* বেকিং সোডা হাফ চা চামচ

* এক চিমটি নুন

* তিন থেকে চার ফোটা লাল ফুড কালার

* গোল্ডেন ও সিলভার বল সাজানোর জন্য


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে একটি পাত্রে ডিম ফাটিয়ে নিয়ে হ্যান্ড ব্লেন্ডার দিয়ে ভালো করে ফেটাতে হবে। এর পর তার মধ্যে তেল ও চিনি আবার ভালো করে ফেটাতে হবে যতক্ষণ পর্যন্ত না চিনি গলে পুরো স্মুথ হচ্ছে ।

এরপর তার মধ্যে ভ্যানিলা এসেন্স দিয়ে আরো একবার ভালো করে ফেটিয়ে নিতে হবে।

এবার একটি পাত্রে চালনি রেখে তারপর ময়দা , বেকিং পাউডার ও বেকিং সোডা এবং নুন দিয়ে ভালো করে চেলে নিতে হবে।

এবার গ্যাসের ওপর কড়া বসিয়ে তার মধ্যে একটি স্ট্যান্ড বসিয়ে একটি ঢাকনা দিয়ে পাঁচ থেকে সাত মিনিট এর জন্য প্রী হিট করতে দিতে হবে ।

এবার ময়দার মিশ্রণ কে অল্প অল্প করে ডিমের মিশ্রণের মধ্যে ঢেলে মেশাতে হবে। সব ভালো করে মেশানোর পর রেড ফুড কালার দিয়ে আবার ভালো করে সব মিশিয়ে দিতে হবে ।

এবার কাপ কেকের ট্রে নিয়ে কাপ কেকের কাগজের মোল্ড গুলো বসিয়ে একটি ছোট হাতার সাহায্যে কেকের ব্যাটার ঢেলে দিয়ে একটু টেপ করে ওপরে গোল্ডেন ও সিলভার বল গুলো দিয়ে গ্যাসের ওপর রাখা কড়ার ঢাকা সরিয়ে স্ট্যান্ড এর ওপর কাপ কেকের ট্রে বসিয়ে দিতে হবে এবং ঢাকা দিয়ে দিতে হবে ২০-২৫ মিনিটের জন্য এই ভাবে রেখে দিতে হবে।

সময় হয়ে গেলে ঢাকা সরিয়ে একটা স্টিকের সাহায্যে দেখে নিতে হবে কেকের ভেতর টা হয়েছে কি না । হয়ে গেলে গ্যাস বন্ধ করে দিয়ে একটু সময় ঢেকে রেখে নামিয়ে নিতে হবে । তাহলেই তৈরী রেড ভেলভেট কাপ কেক। তারপর নিজের মতো করে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

রেশমী রহমান

জিঞ্জার ব্রেড হাউস


কী কী লাগবে

দেড় কাপ ময়দা

এক কাপ ব্রাউন সুগার

একটা ডিম

দারচিনি,লবঙ্গ,জাইফল,আদা পাউডার আর মৌরি গুড়ো করে মশলার একটা মিশ্রণ বানাতে হবে

এক চা চামচ বাটার

সাদা চকলেট

গুঁড়ো চিনি

স্প্রিংকল ডেকোরেশন এর জন্য


কীভাবে বানাবেন

প্রথমে ময়দাকে ছেকে নিতে হবে। তারপর একটা পাত্র নিয়ে তাতে একটু ডিম, ব্রাউন সুগার,

আর বাটার এক সাথে মেশাতে হবে। এবার তাতে ময়দা আর এক চা চামচ মশলার মিশ্রণ নিয়ে ভাল করে মিশিয়ে মাখতে হবে। এবার মাখা অংশ সারা রাত ফ্রিজে এমনভাবে রাখতে হবে জেনো কোনো হাওয়া না ঢুকতে পারে। এবার পরের দিন মাখা অংশটা নিয়ে ঘরের আকারে কেটে তারপর মাইক্রোওয়েভ ওভেন এ ১৭০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড এ ৩৫-৪০ মিনিট বেক করতে হবে। তারপর বেক করা অংশ গুলো ঠাণ্ডা হয়ে গেলে সাদা চকলেট দিয়ে ঘরের শেপ এ আটকাতে হবে। তারপর স্প্রিংকল আর গুঁড়ো চিনি দিয়ে সাজাতে হবে।তৈরি জিঞ্জার ব্রেড হাউস।

লগ কেক


কী কী লাগবে

দেড় কাপ ময়দা

এক কাপ গুঁড়ো চিনি

হাফ চা চামচ বেকিং পাউডার

হাফ কাপ এর সামান্য কম কোকো পাউডার

ডিম ২ টি

হাফ কাপ অয়েল

এক চিমটি লবণ

হুইপড ক্রিম এক কাপ

ডার্ক চকলেট (১০০ গ্রাম)

কীভাবে বানাবেন

প্রথমে ময়দা, চিনি গুঁড়ো, লবণ, কোকো পাউডার আর বেকিং পাউডার চেলে নিতে হবে।এরপর একটি পাত্রে ডিম আর অয়েল ভাল করে মিশিয়ে নিতে হবে। এখন ডিম আর অয়েল এর মিশ্রণে ময়দার মিস্রণটা মিশিয়ে নিতে হবে। এবার একটা সমান চারকোণা পাত্রে মিশিয়ে নেওয়া অংশটা ঢেলে মাইক্রোওয়েভ ওভেন এ ১৮০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড এ ২০ মিনিট বেক করতে হবে। হয়ে গেলে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে রোল এর আকারে গুটিয়ে রাখতে হবে।এবার রোল করা কেকটার ভেতরে হুইপড ক্রিম দিয়ে ভাল করে আবারও রোল করতে হবে।এরপর গুড়ির (লগ) মত করে সাজিয়ে নিতে হবে। ওর ওপর দিয়ে ডার্ক চকলেট দিয়ে গুড়ির মতো নকসা বানাতে হবে। তাহলেই তৈরি লগ কেক।

ঝুমুর বিশ্বাস

স্টাফড চকলেট বল


কী কী লাগবে

নারকেলকোরা (১টা ), আখের গুড় (১কাপ), চকলেট সস (১কাপ), গুঁড়ো দুধ (৬চামচ ), ড্রাই ফ্রুট (১বাটি ), কালারিং স্প্রিংকেল (পরিমাণ মতো )


কীভাবে বানাবেন

কড়াতে প্রথমে নারকেল কোরাটা দিয়ে দিতে হবে এবং তার সঙ্গে আখের গুড় দিয়ে ভালোভাবে হবে মেশাতে হবে । নারকেলকোরা আর আখের গুড়টা যখন ভালোভাবে মিশে যাবে তখন ওর মধ্যে গুঁড়ো দুধ আর ড্রাই ফ্রুটসগুলো দিয়ে আবারো ভালো করে মেশাতে হবে । মিশ্রণটা রেডি হয়ে গেলে একটা থালার মধ্যে নামিয়ে হালকা ঠান্ডা করে রাখতে হবে । এবার একটা হাতার সাহায্যে নারকেলের পুরটা মেখে নিতে হবে ।তারপর সেখান থেকে গোল গোল বলের আকারে গড়ে নিতে হবে ।

এবার নারকেলের যে গোল বল গুলো হয়েছে । সেখান থেকে এক একটা বল নিয়ে চকলেটে সসের মধ্যে মাখিয়ে একটা প্লেটের মধ্যে রাখতে হবে ।এবার চকলেট মাখানো বলগুলো কালারিং স্প্রিংকেল দিয়ে ওপর থেকে ছড়িয়ে দিলেই তৈরি হয়ে যাবে স্টাফড চকলেট বল।

bottom of page